how to withdraw money from online

ফ্রীলাঞ্চিং নিয়ে সবারই কম বাসি আগ্রহ আছে, আমারকাছে যখন নতুন কেউ ফ্রীলাঞ্চিং নিয়া জানতে চায় তাদের প্রশ্ন গুলো অনেকটা এমন
অনলাইনে কি আসলেই টাকা আয় করা যায় ?
কি কি কাজ জানতে হয় টাকা উপার্জন করতে হলে?
অনলাইনের টাকা আপনার পকেটে আসে কিভাবে?
নতুনের ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কিত সকল প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্যেই আমরা সর্বদা প্রস্তুত।
প্রথম দুইটি ট্রফিক্স সম্পর্কে এর আগেই অনেক লেখালেখি হয়েছে।আমাদের আজকের ট্রফিক্স হল অনলাইনের টাকা আপনার পকেটে আসবে কিভাবে?

১) আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট:
আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট। যেকোনো লোকাল ব্যাংক যেমন, DBBL, ব্রাক ব্যাংক, ইসলামি ব্যাংক, EBL ইত্যাদি | প্রায় সবকটি অনলাইন মার্কেটপ্লেসই ‘WIRE Transfer’ এর মাধ্যমে লোকালব্যাংক এ টাকা ট্রান্সফার সুবিধা দিয়ে থাকে| এর জন্যে আপনার প্রয়োজন হবে মার্কেটে প্লেসে যেই নামে রেজিস্টার করা একই নামের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট, অ্যাকাউন্ট নাম্বার, উক্ত ব্রাঞ্চ এর SWIFT Code এবং ব্যাংক এর ঠিকানা| টাকা আসতে ১ থেকে ৬ কর্ম দিবস লেগে যেতে পারে|

২) Payonner MasterCard
MasterCard দিয়ে এখন যেকোনো ATM বুথ থেকে টাকা তোলা জায় । পৃথিবীর যেকোনো দেশ থেকে টাকা তোলা যায়, শপিং করতে পারবেন সকল অনলাইন স্টোরে| এই কার্ড এর সাথে আপনাকে একটি আমেরিকান ব্যাংক অ্যাকাউন্ট, একটি ইউরোপিয়া ব্যাংক অ্যাকাউন্ট দেওয়া হবে, যার ফলে যেই মার্কেট প্লেস লোকাল ব্যাংক ট্রান্সফার থাকবেনা সেইখানে US ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ব্যাবহার করতে পারবেন| সকল জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেসে US Bank Transfer সুবিধা থাকে| তাছাড়া আমেরিকা অথবা ইউরোপের কোন বায়ারের কাজ যদি সরাসরি করেথাকেন তিনি তার বিজনেস অ্যাকাউন্ট থেকে আপনার US ব্যাংকে টাকা ট্রান্সফার করলে তা আপনার কার্ড এ আসে জমা হবে|
এইবার আশা যাক কিভাবে পাবেন একটি MasterCard, আর যেইটি হাতে পাওয়া পর্যন্ত কোন টাকাই খরচ করতে হবে না|
এই লিংক এ গিয়া রেজিস্টার করুনঃ www.payoneer.com
কার্ডটি হাতে পাওয়ার পর আপনি যখন কার্ড এ টাকা ট্রান্সফার করবেন তখন আপানার কাছ থেকে $29 কাটে নেওয়া হবে কার্ড এর মূল্য| রেজিস্টার করার পর আপনাকে $25 গিফট হিসাবে দেওয়া হবে, যার ফলে কার্ড একটিভেশন করার $29 এ আপনার নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে যাবে $4|
রেজিস্টার করার সময় সব তথ্য সঠিক দিবেন যাতে আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ড বা লোকাল ব্যাংক অ্যাকাউন্ট এর সাথে সাথে সব মিলে, যেমন নাম, জন্ম তারিখ ইত্যাদি| আর সঠিক ঠিকানা তো দিতেই হয়ে।আপনি এখনো অনলাইনে কাজ শুরু করেননি তাতে সমস্যা নাই| কার্ড এর জন্যে অ্যাপ্লাই করার পর তারা যদি জানতে চায় কোথায় কার্ড ব্যাবহার করবেন, সে ক্ষেত্রে আপনি আপনার UpWork বা অন্য মার্কেট প্লেস এর প্রোফাইল এর লিংক দিতে পারেন, তাতে তারা সিউর হতে পারবে যে ফ্রীলাঞ্চিং করেন|


৩) Skrill
বাংলাদেশে PayPal এর বিকল্প হচ্ছে Skrill, এইটি একটি অনলাইন ব্যাংক| UpWork, Envato সহ আরও অনেক জনপ্রিয় ওয়েবসাইট থাকে Skrill এর মাধ্যমে টাকা তুলতে পারেন| Skrill দিন দিন অনেক জনপ্রিয় হচ্ছে, স্ক্রিল দিয়া আপনি জনপ্রিয় সব অনলাইনে স্টোরে কিনাকাটা করতে পারবেন| যেমন Domain Hosting কিনা, Skype ক্রেডিট কিনা ইত্যাদি|
এই লিংক এ গিয়া রেজিস্টার করুনঃ www.skrill.com
যেমনটা একটু আগেই বললাম, রেজিস্টারের সময় সকল তথ্য সঠিক দিবেন, অন্যথা টাকা তোলার সময় বিপদে পড়বেন| কোথাও ভুল তথ্য না দেওয়াই উত্তম। মার্কেট প্লেস থেকে ট্রান্সফার করা টাকা জমা হবে সাথে সাথেই, তবে Skrill থাকে আপনার লোকাল ব্যাংক এ আসতে সময় লাগতে পারে ৩ থাকে ৭ কর্ম দিবস|

Source: Web Academy

Freelancing TipsLrb Inventive IT

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *